শনিবার ১ অক্টোবর ২০২২
      Beta
, তাপস গ্রিস থেকে ইতালি যেতে চেয়েছিল। কিন্তু প্রচণ্ড গরমে সে মারা যায়। ফেসবুকে ভিডিও দেখে মৃত্যুর বিষয়টিতে নিশ্চিত হয় তার পরিবার। ছবি: সংগৃহীত

অবৈধভাবে গ্রিস থেকে ইতালি: পাহাড়েই ঝরে গেল বাংলাদেশি যুবকের প্রাণ

দ্য রিপোর্ট ডেস্ক
প্রকাশের সময় : মঙ্গলবার ৯ অগাস্ট ২০২২ ০৮:৫৮:০০ পূর্বাহ্ন | সর্বশেষ

অবৈধভাবে  গ্রিস থেকে সীমান্ত পাড়ি দিয়ে ইতালি যাওয়ার পথে প্রচণ্ড গরমে তাপস সরকার নামে সুনামগঞ্জের এক যুবকের মৃত্যু হয়েছে। 

তাপস সরকার (৩০) ধর্মপাশা উপজেলার জয়শ্রী ইউনিয়নের ৩ নম্বর ওয়ার্ডের বাসিন্দা। বাগউচা গ্রামের মৃত সতীশ চন্দ্র সরকারের বড় ছেলে তাপস সরকারের মৃত্যুর একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়েছে।

পারিবারিক সূত্রের বরাত দিয়ে অনলােইন নিউজ পোর্টাল বাংলা ট্রিবিউন ডট জানায়,ছয়মাস আগে তুরষ্ক হয়ে অবৈধভাবে তুরষ্ক হয়ে গ্রিসে যায় তাপস। সেখান বসবাসকারী বাংলাদেশি এক দালালের মাধ্যমে গ্রিস থেকে সার্বিয়া যাওয়ার কথা ছিল তার। সেখান থেকে আরও এক দালালের মাধ্যমে ইতালি যাওয়ার কথা ছিল তাপসের।

দালালের সঙ্গে চুক্তি অনুযায়ী গত ৩ আগস্ট গ্রিস থেকে তাপসসহ ৩০ জনের একটি দলকে আলবেনিয়ায় নিয়ে যায় দালাল চক্রটি। আলবেনিয়া স্থল সীমান্ত থেকে তীব্র গরমের মাঝে আট ঘণ্টায় উঁচু পাহাড় পাড়ি দিয়ে মন্টিনেগ্রো প্রবেশের সময় হঠাৎ পাহাড়ের মাঝে লুটিয়ে পড়েন তাপস। এ সময় তার মৃত্যু নিশ্চিত ভেবে দালালসহ অন্যান্য যাত্রী তাকে রেখেই চলে যান। তার সঙ্গে থাকা পরিচিত দুজন অনেক চেষ্টা করেও কোনও সাড়া না পেয়ে তারাও চলে যান। তখন একটি ভিডিও করে গ্রিসে থাকা স্বজনদের কাছে পাঠিয়ে দেন ওই দুই ব্যক্তি। তাপস এসএসসি পর্যন্ত পড়ালেখা করেছেন। সুমন সরকার নামে তার এক ছোটভাই রয়েছেন।

সুমন সরকার গণমাধ্যমকে  জানান, তাপস গ্রিস থেকে ইতালি যেতে চেয়েছিল। কিন্তু প্রচণ্ড গরমে সে মারা যায়। ফেসবুকে ভিডিও দেখে তার মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত হন তারা।

জয়শ্রী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সঞ্জয় রায় চৌধুরী গণমাধ্যমকে বলেন, গ্রিস থেকে অবৈধভাবে ইতালি যাওয়ার সময় মারা গেছে তাপস। তার পরিবার বিষয়টি আমাকে জানিয়েছে। কিন্তু তার লাশ দেশে আনার সুযোগ নেই। তারপরও আমরা দায়িত্বশীলদের সঙ্গে কথা বলবো।