শনিবার ১ অক্টোবর ২০২২
      Beta
যুক্তরাষ্ট্র-বাংলাদেশ বিজনেস কাউন্সিলের সদস্যদের সঙ্গে এক গোল টেবিল বৈঠকে এ আহ্বান জানান প্রধানমন্ত্রী।

মার্কিন ব্যবসায়ীদের বাংলাদেশে বিনিয়োগের আহ্বান

দ্য রিপোর্ট ডেস্ক
প্রকাশের সময় : শুক্রবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২২ ০৮:০৪:০০ পূর্বাহ্ন | বাণিজ্য

বিভিন্ন সেক্টরে সম্ভাবনা এবং উদার বিনিয়োগ নীতির কথা তুলে ধরে মার্কিন ব্যবসায়ীদের বাংলাদেশে বিনিয়োগ করার আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

গতকাল বৃহস্পতিবার স্থানীয় সময় দুপুরে নিউইয়র্কের হোটেল লোটে প্যালেসে যুক্তরাষ্ট্র-বাংলাদেশ বিজনেস কাউন্সিলের সদস্যদের সঙ্গে এক গোল টেবিল বৈঠকে তিনি এ আহ্বান জানান।

সম্ভবনার কথা তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মার্কিন বিনিয়োগকারীদের বাংলাদেশে নবায়নযোগ্য শক্তি, জাহাজ নির্মাণ,অটোমোবাইল, ফার্মাসিউটিক্যালস,ভারী যন্ত্রপাতি, রাসায়নিক সার, আইসিটি, সামুদ্রিক সম্পদ, জাহাজ নির্মাণ, চিকিৎসা সরঞ্জাম এবং কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন তৈরিতে বিনিয়োগের জন্য আমন্ত্রণ জানান।

বাংলাদেশের উদার বিনিয়োগ নীতির কথা তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমাদের উদার বিনিয়োগ নীতি রয়েছে- যার মধ্যে রয়েছে বিদেশী বিনিয়োগ সুরক্ষা, ট্যাক্স হলিডে, রয়্যালটি রেমিটেন্স; অনিয়ন্ত্রিত প্রস্থান নীতি; প্রস্থানের উপর লভ্যাংশ এবং মূলধনের সম্পূর্ণ প্রত্যাবর্তনের সুযোগ।

বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চল এবং দক্ষ কর্মীর সহজলভ্যতার কথা তুলে ধরে শেখ হাসিনা বলেন, বাংলাদেশ দেশের বিভিন্ন স্থানে ১০০টি ‘বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চল’(SEZ) এবং বেশ কিছু হাই-টেক পার্ক স্থাপন করছে। যদি প্রয়োজন হয় আমরা মার্কিন বিনিয়োগকারীদের জন্য একটি স্বতন্ত্র বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চল দেবো।

তিনি বলেন, ছয় লাখেরও বেশি ফ্রি-ল্যান্সিং আইটি পেশাদার থাকার কারণে বাংলাদেশ আইটি বিনিয়োগের জন্য সঠিক গন্তব্য। বাংলাদেশে প্রতিযোগিতামূলক মজুরিতে দক্ষ মানবসম্পদ একটি অতিরিক্ত সুবিধা।

শেখ হাসিনা বলেন, ২০২৬ সালের মধ্যে বাংলাদেশ এলডিসি মর্যাদা থেকে উত্তোরণ ঘটবে, তাই আমাদের বৈশ্বিক প্রতিযোগিতা এবং রপ্তানি বাড়ানোর জন্য আমাদের পর্যাপ্ত সহায়তা প্রয়োজন। এই চ্যালেঞ্জিং প্রচেষ্টায় মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র আমাদের সবচেয়ে শক্তিশালী অংশীদার হতে পারে।

বাংলাদেশের ভৌগলিক অবস্থানগত সুবিধার কথা তুলে ধরে সরকার প্রধান বলেন, বাংলাদেশের কৌশলগত অবস্থান এই অঞ্চলের অর্থনৈতিক হাব হওয়ার জন্য প্রচুর সম্ভাবনার দাবি রাখে। ভারত,চীন এবং দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার অবস্থান ও ৪ বিলিয়ন মানুষের সম্মিলিত বাজারে মাঝখানে বাংলাদেশের অবস্থান।