সোমবার ৩০ জানুয়ারী ২০২৩
      Beta

নিষিদ্ধের ২০ মাস পর কঙ্গণার অ্যাকাউন্ট সচল করলো টুইটার কর্তৃপক্ষ

বিনোদন ডেস্ক
প্রকাশের সময় : বুধবার ২৫ জানুয়ারী ২০২৩ ০৫:১৮:০০ অপরাহ্ন | বিনোদন

বিতর্কিত পোস্ট, সাম্প্রদায়িক উসকানি ও অশান্তি ছড়ানোর অভিযোগে সাসপেন্ড হয়ে যাওয়া বলিউড অভিনেত্রী কঙ্গনা রাণৌতের টুইটার অ্যাকাউন্ট আবার সচল হয়েছে। এর মধ্য দিয়ে টুইটারে প্রত্যাবর্তনের ইচ্ছেপূরণ হলো বলিউডের এই কন্ট্রোভার্সি কুইন’র।

গতকাল মঙ্গলবার প্ল্যাটফর্মটিতে ফিওের আসার কথা এক টুইট বার্তায় অভিনেত্রী নিজেই জানিয়েছেন।  টুইটে কঙ্গনা লিখেছেন, “সবাইকে নমস্কার জানাচ্ছি। আবার টুইটারে ফিরে আসতে পেরে ভালো লাগছে।’ সেই সঙ্গে কঙ্গনা তার পরবর্তী ‘ইমার্জেন্সি’ সিনেমার একটি ছবিও পোস্ট করেছেন।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসের খবরে বলা হয়েছে, ২০২১ সালে অনুষ্ঠিত পশ্চিমবঙ্গের বিধানসভা নির্বাচনে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের তৃণমূল কংগ্রেস জয় পেলে তা মেনে নিতে পারেনি বিজেপি সমর্থক  অভিনেত্রী কঙ্গনা। একের পর এক বিরূপ টুইট করেছিলেন তিনি। এক টুইটে কঙ্গণা লিখেছিলেন, ‘বাংলাদেশি আর রোহিঙ্গারা মমতার সবচেয়ে বড় শক্তি। যা চলছে, তাতে হিন্দুরা আর সেখানে সংখ্যাগরিষ্ঠ নয়। তথ্য অনুযায়ী, ভারতে বাঙালি মুসলিমরা বেশি দারিদ্র্য আর সবচেয়ে দুরবস্থায় জীবন যাপন করে। ভালো, আরেকটি কাশ্মীর তৈরি হচ্ছে।’আরেক টুইট বার্তায় তৃণমূল নেত্রীকে ‘ভিলেন’ আখ্যা দিয়ে কঙ্গণা লিখেছিলেন, ‘এটা ভয়ংকর...গুন্ডাকে মেরে ফেলার জন্য আমাদের সুপার গুন্ডার প্রয়োজন...। তিনি অব্যক্ত দানবের মতো, তাঁকে দমন করার জন্য দয়া করে ২০০০ সালের প্রথম দিকের বিরাট রূপটা দেখান মোদিজি...#PresidentRuleInBengal।’

কঙ্গনার এসব পোস্ট ঘৃণ্য এবং আপত্তিজনক বলে অভিযোগ ওঠে। এরই পরিপ্রেক্ষিতে টুইটার কর্তৃপক্ষ কড়া নজরদারি রেখে একাধিকবার সতর্ক করা সত্ত্বেও শোনেনি অভিনেত্রী কঙ্গণা। পরে ২০২১ সালে টুইটার কর্তৃপক্ষ বলিউড অভিনেত্রীর টুইটার অ্যাকাউন্ট সাসপেন্ড করে।